সহজেই শিখে নিন বিদেশি একাধিক ভাষা!

আমি পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে গিয়েছি। বহু মানুষের সাথে মিশেছি। বিদেশিদের তুলনায় আমাদের মেধার কোনো ঘাটতি নেই। বাংলাদেশি তরুণ-তরুণীদের সবচেয়ে বড় ঘাটতি হচ্ছে যোগাযোগ-দক্ষতা। আমি যদি কোনো একজন চাকরিদাতাকে বোঝাতেই না পারি আমার কী যোগ্যতা, আমি কী চাই, তাহলে কীভাবে আমার চাকরি হবে? আর যদি সেটা হয় প্রবাসে তাহলে তো কোনো কথাই নেই! কেবল ভাষা না জানার কারণেই অনেক মেধাবী তরুণ-তরুণী প্রবাসে এসে বেশ ভালোই বিপদে পড়ে যান। তাই আজকের এই পোস্টে আমি জানাবো সহজেই কীভাবে বিদেশি একাধিক ভাষা শিখে নিতে পারবেন।

এই যুগে এসেও অনেকেই ভাষা শেখানোর লোকদের পেছনে ছুটে বেড়ায়। আমি কোনোভাবেই ভাষার শিক্ষকদের বিরুদ্ধে না। কিন্তু অনেকক্ষেত্রেই ভাষা শেখার জন্য ভালো একটা সেন্টার আর মানসম্মত একজন শিক্ষক খুঁজে পাওয়া কঠিন। এবং দেশে বসে তা করাও একেবারে সহজ নয়। উদাহরণস্বরূপ বাংলাদেশে জার্মান ভাষা শিক্ষার বিষয়েই যদি বলি তাহলে হয়রানি কি কম!? যদিও ধানমণ্ডির গোয়েথে ইনস্টিটিউট (গ্যোটে ইনস্টিটিউট) কিংবা সেখানকার শিক্ষকদের মান নিয়ে আমার কোনো কথা নেই। কিন্তু ধরুন আপনি সাভারের জিরানি কিংবা যাত্রাবাড়ির পাশে কাঁচপুরে থাকেন, অথবা ঢাকার ভেরতেই রামপুরাতে… ভাবুন তো একবার অন্যান্য কাজের ফাঁকে সময় ম্যানেজ করে সেখানে গিয়ে ক্লাস করা কতটা কঠিন!

আর খরচও তো কম না! সেই সঙ্গে কত্ত ঝক্কিঝামেলা। আবার ঢাকার বাইরেই বা সেই সুযোগ কতটা? জার্মান ভাষা শেখানোর জন্য চট্টগ্রামের জামাল খান রোডে আছে ডী স্প্রাখে আর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়েও জার্মান ভাষা সম্ভবত শেখানো হয়। কিন্তু সিলেটে জার্মান ভাষা শেখানো হয় বলে জানি না, কিংবা বরিশাল অথবা দেশের আরও আরও সব জেলায়। সবার কি গ্যোটে ইনস্টিটিউট  (Goethe Institute) -এ এসে জার্মান ভাষা শেখা সম্ভব?

আরও দুয়েকটা উদাহরণ দিই প্রবাসের বিষয়ে। ধরুন, পোল্যান্ডের ছোট একটি শহরে থাকেন জাহিদ হাসান। নিজের ব্যক্তিগত ব্যবসা পরিচালনা করেন। একটা সেকেন্ডও সময় নেই ভাষা শেখার কোনো সেন্টারে গিয়ে তা শেখার। কারণ আশপাশে কোনো স্কুলই নেই। যা আছে তা-ও দু ঘণ্টার দূরত্বে। এ ছাড়া স্কুলের সময়ের সাথে তাঁর সময়ের কোনো মিলই নেই। অথচ ভালোভাবে ভাষা না পারার কারণে পদে পদে আটকে যেতে হচ্ছে তাঁকে।

সৌদিআরবে থাকেন বরিশালের মমিন মিয়া। ভালোভাবে আরবি না জানার কারণে বিপদের আর যেন শেষ নেই। কোনো স্কুলে গিয়ে তা শেখারও সুযোগ নেই। অথচ মোটামুটিমানের ভাষা পারলেও তার জীবনটা অনেক সুন্দর হতে পারতো।

জার্মানির নর্থরাইন ওয়েস্টফালিয়া রাজ্যের একটি শহরে থাকেন বাংলাদেশি শিক্ষার্থী সুমি। ন্যূনতম ভাষাটুকুও না জানার কারণে তাঁকে রেস্ট্যুরেন্টে ক্লিনিংয়ের কাজে নেমে পড়তে হয়েছিল। অথচ নাইজিরিয়ান শিক্ষার্থী ভাষার জোরে আডেবিম্পে কাজ পেয়েছিল আরেকটু ‘ভালো’ জায়গায়, ক্যাশে।

এমন হাজারও উদাহরণ দেওয়া যাবে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশিদের নিয়ে। এর একমাত্র কারণ ভাষা না পারা। অথচ বসবাসরত দেশটির ভাষা পারলে প্রবাসেও জীবনটা অনেক অনেক সহজ করে ফেলা সম্ভব।

কিন্তু তা কীভাবে করবেন? সেটা কি সহজ? খুব বেশি সহজ না আবার খুব বেশি যে কঠিন তা-ও না। অনেকেই সবকিছু শতভাগ বিনামূল্যে খোঁজেন। কিন্তু শতভাগ বিনামূল্যে আর সহজে কোনোকিছুই নাই। ইউটিউবে-গুগলে কিছু রিসোর্স আপনি পাবেন। তবে সমস্যা যেটা হয় তা হলো ধারাবাহিকতা। আপনি আজ দু লাইন শিখলেন তো ছয়দিন আর কোনো খবরই নাই। আবার ইউটিউবে ঢুকলেন ভাষা শিখতে কিন্তু থাম্বনেইল দেখে ক্লিক করে বসলেন মোশাররফ করিম কিংবা মেহজাবিন চৌধুরীর রোমান্টিক নাটকে। গেলো সব!

এভাবে আমরা পিছিয়ে পড়ি। কাজের কাজ কিছুই হয় না। তাই আমি বলি ভালো একটা কোর্স অনলাইনে করুন। ভাষা শেখাটাকে একটা প্যাশন হিসেবে নিন, অবশ্য কর্তব্য হিসেবে ধরুন। ভাবুন এটা না পারলে বিদেশে বেঁচে থাকাই আপনার জন্য মারাত্মক পর্যায়ের কঠিন হয়ে যাবে। তাহলে আপনার শেখা হবে কিছুটা হলেও।

যা-ই হোক, এখন প্রশ্ন করতে পারেন কোথায় কীভাবে শিখবেন আপনার কাঙ্ক্ষিত ভাষাটি? খরচইবা কত পড়বে? খুবই খুশির খবর হচ্ছে যে অফারটা প্রায় ২ লাখ টাকা বা ২০০০ ইউরোর ছিল তাতে এখন ছাড় চলছে। যেমন-তেমন ছাড় নাহ্! প্রায় ৯৫ শতাংশ! মাত্র ৮৯ ইউরো বা প্রায় ৯০০০ টাকা এবং লাইফটাইম!

এই কোর্সে এনলিস্টেড হওয়ার আরও যেটা মজা তা হচ্ছে আপনি সারাজীবনের জন্য একটা অ্যাকাউন্ট পাচ্ছেন এবং পৃথিবীর ৪১টা ভাষা আপনি শিখতে পারার সুযোগ তৈরি হবে।

এখন বলতে পারেন, আমার তো ক্রেডিটকার্ড নাই কিংবা পেপ্যাল নেই, তাহলে কীভাবে হবে? কীভাবে কিনবো? খুব সহজ বুদ্ধি। আপনার কোনো না কোনো বন্ধু বা আত্মীয়স্বজন বিদেশে থাকে। নিজে কিনতে না পারলে তাঁদের দিয়ে কেনান। এই লিংকটি ( https://uto.la/pHk ) তাঁদের দিয়ে বলুন কিনে দিতে। বলুন, আমাকে ৯০০০ হাজার টাকার একটা গিফট দিন যেটা আমার সারাজীবন কাজে লাগবে। এমনকি এটি হয়তো তিনি এবং আপনিও ব্যবহার করতে পারবেন। কয়েকজন বন্ধুবান্ধব মিলে কিনলেও কিন্তু খরচ পড়বে নামমাত্র। একটা ইদে এক বা একাধিক পাঞ্জাবি কিংবা জিন্স কিনতেও কিন্তু তার চেয়ে বেশি টাকা খরচ হয়! অথচ একটি পরিবারের জন্য এই যুগে এমন একটি অ্যকাউন্ট অবশ্যই থাকা উচিত বলে মনে করি। নেটফ্লিক্স কিংবা অ্যামাজন প্রাইমে মাসে বা বছরে কত যায়? কিন্তু জীবনটাকে সুন্দর করতে সারাজীবনের জন্য মাত্র ৯০০০ টাকারও কম কেন খরচ করবেন না???

যেহেতু ৪১টা ভাষা আছে তাই, কোনো না কোনোভাবে একটা না একটা ভাষা কাজে লাগবেই লাগবে। ভাষার সার্টিফিকেট দেবে কি-না তা জিজ্ঞেস করতে পারেন, কিন্তু ভাষা পারলে কি সার্টিফিকেট আসলে লাগে? আর অফিসিয়াল সার্টিফিকেট লাগলে তা পরে সংশ্লিষ্ট অথোরিটির কাছে শুধু পরীক্ষা দিয়েই নিয়ে নিতে পারবেন।

তাহলে এই লিংকে গিয়ে এখনই শেখা শুরু করুন আপনার কাঙ্ক্ষিত ভাষাটি। এই অফারটি অবশ্য নববর্ষ উপলক্ষে চলছে। কেবল ৩১ জানুয়ারি ২০২২ পর্যন্ত। তাই তাড়াতাড়ি করুন!!

এখানে যেসব ভাষা রয়েছে সেগুলো হলো Afrikaans, Arabic, Bengali, Brazilian Portuguese, Bulgarian, Catalan, Chinese, Croatian, Czech, Danish, Dutch, English, Finnish, French, German, Greek, Hebrew, Hindi, Hungarian, Indonesian, Italian, Japanese, Korean, Latin, Latvian, Lithuanian, Norwegian, Persian, Polish, European Portuguese ইত্যাদি। আরও মজার বিষয় হলো এসবের সবগুলোই আপনি শিখতে পারবেন অন্য যে-কোনো ভাষা থেকে। এবং এই প্রতিষ্ঠানটি ভাষা শেখানোর অ্যাপের মধ্যে সেরা!

Subscribe For Latest Updates!

Get higher-study abroad, visa & migration-related latest updates from eGal!

Invalid email address
We promise not to spam you. You can unsubscribe at any time.

Leave a Reply

Your email address will not be published.