জাপানের সেরা ১০ বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকা

জাপান উন্নত দেশগুলোর তালিকায় প্রথম সারির একটি দেশ। যদিও দেশটি আয়তনের তুলনায় ছোট কিন্তু এর অর্থনীতি ব্যাপক বড়। এই দেশটি তথ্য ও প্রযুক্তিতে যতটা এগিয়ে আছে ঠিক ততটাই শিক্ষা ক্ষেত্রে এগিয়ে। জাপানের এই শীর্ষ উন্নত দেশগুলোর তালিকায় থাকতে সবচেয়ে বড় ভূমিকা পালন করেছে শিক্ষা। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো জাপানে রয়েছে অনেক আন্তর্জাতিক মানের বিশ্ববিদ্যালয়। আর আজকে আমরা এই পোস্টের মাধ্যমে জাপানের সেরা ১০ টি বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কে বিস্তারিত জানানোর চেষ্টা করব। আপনি যদি জাপানে উচ্চশিক্ষায় আগ্রহী হয়ে থাকেন তবে জাপানের সেরা ১০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকা আপনার জানা থাকা দরকার।

জাপানের সেরা ১০ টি বিশ্ববিদ্যালয় কোণগুলো?

১. তোহোকু বিশ্ববিদ্যালয় (Tohoku University)

জাপানের সকল পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে সবচেয়ে শীর্ষ রয়েছে এই বিশ্ববিদ্যালয়টি – জাপান ইউনিভার্সিটি রেংকিং এবং ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী এ বিশ্ববিদ্যালয়টির অবস্থান ২০১ থেকে ২৫০ তম। আর ইমপেক্ট রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ২০০ তম। 

Tohoku University (টোহোকু বিশ্ববিদ্যালয়) টির অবস্থান জাপানের টোহোকু অঞ্চলের মিয়াগির সেন্দাইতে। এই অঞ্চলের মানুষের কাছে আঞ্চলিকভাবে এটিকে টনপেই (Tonpei) নামে সম্বোধন করা হয়। বিখ্যাত এই বিশ্ববিদ্যালয়টি জাপানে ১৯০৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এই বিখ্যাত বিশ্ববিদ্যালয়টি ধারাবাহিকভাবে ২০২০, ২০২১ এবং ২০২২ সালে জাপানে শীর্ষস্থান দখল করে টাইমস হায়ার এডুকেশন অনুসারে। এই বিশ্ববিদ্যালয়টির একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়। জাপানের বিখ্যাত এই বিশ্ববিদ্যালয়টি ৬২০ একর জমির উপর প্রতিষ্ঠিত।

Tohoku University

এই বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় ১১০৯৪ জন এবং স্নাতকোত্তর পর্যায়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা রয়েছে ৭৭০৪ জন। এছাড়া বিদেশি শিক্ষার্থী রয়েছে প্রায় ১৩৪৬ জন। এছাড়া প্রশাসনিক কর্মকর্তা রয়েছে প্রায় ৫৭৫৬ জন। টোহোকু ইউনিভার্সিটি জাপানের অন্যতম শীর্ষ গবেষণা প্রতিষ্ঠান।

জাপানের এই বিখ্যাত বিশ্ববিদ্যালয়টি গবেষণায় পদার্থ বিজ্ঞানে (জাপানে প্রথম, বিশ্বে তৃতীয়), পদার্থবিদ্যা (জাপানে দ্বিতীয়, বিশ্বে দশম), ফার্মাকোলজি ও টক্সিকোলজি (জাপানে তৃতীয়, বিশ্বে ৬৪তম) এবং রসায়নে বিশেষভাবে স্বতন্ত্র (জাপানে ৬ষ্ঠ, বিশ্বে ২০তম)।

২. টোকিও বিশ্ববিদ্যালয় (The University of Tokyo)

জাপানের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে অন্যতম একটি বিশ্ববিদ্যালয় হলো টোকিও বিশ্ববিদ্যালয়। জাপান ইউনিভার্সিটির রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ২য়। ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী জাপানের টোকিও বিশ্ববিদ্যালয়টি বিশ্বে ৩৫ তম অবস্থানে রয়েছে। এছাড়া ইম্প্যাক্ট ইউনিভার্সিটির রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়টির অবস্থান ১০১ তম থেকে ২০০ তম এর মধ্যে।

টোকিও বিশ্ববিদ্যালয়টির অবস্থান জাপানের অন্যতম বিখ্যাত শহর টোকিও শহরের বাঙ্কিওতে। এই বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল ১৮৭৭ সালে মেইজি সরকারের আমলে। জাপানের এই বিশ্ববিদ্যালয়টি বিশ্ব রেংকিং এ শীর্ষস্থান দখল করে আছে জাপানের মধ্যে। অতীতে ১৮৮৬ থেকে ১৮৯৭ সাল পর্যন্ত এই বিশ্ববিদ্যালয়টির নাম ছিল ইম্পেরিয়াল ইউনিভার্সিটি। 

পরবর্তীতে ১৮৯৭ সাল থেকে ১৯৪৭ সাল পর্যন্ত এ বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম ছিল ইম্পেরিয়াল টোকিও ইউনিভার্সিটি। এটি জাপান সরকারের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়। এটি প্রায় ১৪৫ বছর আগে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। ২০২১ সালের হিসাব অনুযায়ী, টোকিও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র, অনুষদ সদস্য এবং গবেষকদের মধ্যে ১৭ জন জাপানের প্রধানমন্ত্রী , ১৮ জন সর্বশ্রেষ্ঠ নোবেল পুরস্কার বিজয়ী , ৪ জন প্রিটজকার পুরস্কার বিজয়ী, ৫ জন মহাকাশচারী এবং একজন ফিল্ড মেডালিস্ট রয়েছে।

টোকিও বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসের আয়তন হল প্রায় ৩৫ হেক্টর এছাড়াও এই বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা হলো ২৮১৮১ জন।

এই বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় ১৪০৩৩ জন এবং স্নাতকোত্তর পর্যায়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা রয়েছে ১৪১৩৮ জন। এছাড়া বিদেশি শিক্ষার্থী রয়েছে প্রায় ১৩৪৬ জন।

৩.ওসাকা বিশ্ববিদ্যালয় (Osaka University)

জাপানের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে অন্যতম একটি বিশ্ববিদ্যালয় হলো ওসাকা বিশ্ববিদ্যালয় (Osaka University)। জাপান ইউনিভার্সিটির রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ৩য়। ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী জাপানের ওসাকা বিশ্ববিদ্যালয়টি বিশ্বে ৩০১-৩৫০ তম অবস্থানে রয়েছে। এছাড়া ইম্প্যাক্ট ইউনিভার্সিটির রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয় অবস্থান ২০১ তম থেকে ৩০০ তম এর মধ্যে।

Osaka University

ওসাকা বিশ্ববিদ্যালয় জাপানের ষষ্ঠ প্রাচীনতম বিশ্ববিদ্যালয়। জাপানে ওসাকা প্রিফেকচার মেডিকেল কলেজ এবং জাপান এর আরও সাতটি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এই বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে পরিচালিত হয়। 

Osaka University (ওসাকা বিশ্ববিদ্যালয়) টির অবস্থান জাপানের ওসাকা শহরের সুইটি নামক স্থানে। জাপানের বিখ্যাত এই বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৮২৪ সালে। ওসাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়তন ১.৫৯ বর্গ কিলোমিটার। এটিও জাপানের অন্যতম একটি সেরা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়। ওসাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা হলো ২৩২২৬ জন।

এই বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় ১৫০৭৫ জন এবং স্নাতকোত্তর পর্যায়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা রয়েছে ৮১৫১ জন। এছাড়া অন্যান্য শিক্ষার্থী রয়েছে প্রায় ৫৩৭ জন। ওসাকা বিশ্ববিদ্যালয় জাপান সরকারের অন্যতম শীর্ষ গবেষণা প্রতিষ্ঠান।

৪. Tokyo Institute of Technology (টোকিও ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি)

জাপানের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে অন্যতম একটি বিশ্ববিদ্যালয় হলো Tokyo Institute of Technology (টোকিও ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি)। জাপান ইউনিভার্সিটির রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ৪র্থ। ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী জাপানের টোকিও ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি বিশ্ববিদ্যালয়টি বিশ্বে ৩০১-৩৫০ তম অবস্থানে রয়েছে। এছাড়া ইম্প্যাক্ট ইউনিভার্সিটির রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ২০১ তম থেকে ৩০০ তম এর মধ্যে।

Tokyo Institute of Technology

টোকিও ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজি জাপানের অন্যতম একটা জাতীয় পর্যায়ের গবেষণা ইনস্টিটিউট। এই প্রতিষ্ঠানের অবস্থান জাপানের গ্রেটার টোকিও এরিয়াতে। এটি তথ্য বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে সমৃদ্ধ একটি সেরা ইনস্টিটিউট। জাপান যে সব প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে তার মধ্যে সবার শীর্ষ রয়েছে এই বিশ্ববিদ্যালয়টি।

জাপানের বিখ্যাত এই প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়টি সম্পূর্ণ সরকারি মালিকানায় পরিচালিত অর্থাৎ এটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়। Tokyo Institute of Technology (টোকিও ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি) সর্বপ্রথম প্রতিষ্ঠিত হয় ১৮৮১ সালে। টোকিও ইউনিভার্সিটি অফ টেকনোলজি বিশ্ববিদ্যালয়টি একদম গ্রামীণ পর্যায়ে অবস্থিত। টোকিও ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির টোকিও টেকের তিনটি ক্যাম্পাস রয়েছে। যার প্রধান ক্যাম্পাস হিসেবে ওকায়ামা মেগুরোতে ওকায়ামা ক্যাম্পাস। দ্বিতীয় ক্যাম্পাসটি শিবাউরার তামাচি ক্যাম্পাস এবং তৃতীয় ক্যাম্পাসটি ইয়োকোহামার মিডোরি-কু নাগাতসুতাতে অবস্থিত সুজুকাকেদাই ক্যাম্পাস।

টোকিও ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজি বিশ্ববিদ্যালয়ে বর্তমানে কর্মরত কর্মচারীর সংখ্যা হলো ১৩২৪ জন। টোকিও ইউনিভার্সিটি অফ টেকনোলজি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা হলো ৯০৩৬ জন। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় ৪৯৪০ জন এবং স্নাতকোত্তর পর্যায়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা রয়েছে ৫০৯৬ জন।

৫. কিয়োটো বিশ্ববিদ্যালয় (Kyoto University)

জাপানের সেরা ১০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে কিয়োটো বিশ্ববিদ্যালয় একটি সেরা এবং প্রাচী্তনম বিশ্ববিদ্যালয়। জাপান ইউনিভার্সিটির রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ৫ম। ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি র্যাংকিং ২০২২ অনুযায়ী জাপানের কিয়োটো বিশ্ববিদ্যালয় (Kyoto University) বিশ্বে ৬১ তম অবস্থানে রয়েছে। এছাড়া ইম্প্যাক্ট ইউনিভার্সিটির রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ১৯ তম।

Kyoto University

কিয়োটো বিশ্ববিদ্যালয় (Kyoto University) জাপানের কিয়োটোতে অবস্থিত একটি পাবলিক গবেষণা বিশ্ববিদ্যালয় । কিয়োটো বিশ্ববিদ্যালয় (Kyoto University) ১৮৯৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এটি প্রাক্তন ইম্পেরিয়াল বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে একটি বিশ্ববিদ্যালয়। জাপানের দ্বিতীয় প্রাচীনতম বিশ্ববিদ্যালয় এটি । কিয়োটো বিশ্ববিদ্যালয় (Kyoto University) ধারাবাহিকভাবে জাপানের শীর্ষ দুই, এশিয়ার শীর্ষ দশ এবং বিশ্বের উচ্চশিক্ষার শীর্ষ পঞ্চাশ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে স্থান করে নিয়েছে।

জাপানের বিখ্যাত এই প্রতিষ্ঠানটির বর্তমান বয়স প্রায় ১২৫ বছর। কিয়োটো বিশ্ববিদ্যালয় (Kyoto University) শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির ক্যাম্পাসের মোট আয়তন হলো ৩৩৩ একর।

কিয়োটো বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা হলো ২২৬১৫ জন। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় ১৩,০৩৮ জন এবং স্নাতকোত্তর পর্যায়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা রয়েছে ৯৩০৮ জন। এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির মোট কর্মচারী রয়েছে ৩৪৮০ ( শিক্ষক কর্মী) আর মোট প্রশাসনিক কর্মকর্তা রয়েছে ৩৯৭৮ (মোট স্টাফ)। কিয়োটো বিশ্ববিদ্যালয় জাপানের অন্যতম শীর্ষ গবেষণা প্রতিষ্ঠান।

৬. Hokkaido University (হোক্কাইডো বিশ্ববিদ্যালয়)

জাপানের সেরা ১০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকার মধ্যে আরেকটি সেরা বিশ্ববিদ্যালয় হলো Hokkaido University (হোক্কাইডো বিশ্ববিদ্যালয়)। জাপান ইউনিভার্সিটির রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ৬ তম । ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী জাপানের Hokkaido University (হোক্কাইডো বিশ্ববিদ্যালয়)বিশ্বে ৫০১ তম থেকে ৬০০ তম অবস্থানে রয়েছে। এছাড়া ইম্প্যাক্ট ইউনিভার্সিটির রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ১০ তম।

Hokkaido University

হোক্কাইডো ইউনিভার্সিটি সাপ্পোরো , হোক্কাইডোতে অবস্থিত একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় । এটি ছিল জাপানের পঞ্চম ইম্পেরিয়াল ইউনিভার্সিটি। Hokkaido University (হোক্কাইডো বিশ্ববিদ্যালয়) যেট উচ্চশিক্ষা বা গবেষণার দেশের সেরা প্রতিষ্ঠান হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। হোক্কাইডো বিশ্ববিদ্যালয়কে জাপানের শীর্ষ বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে একটি হিসাবে বিবেচনা করা হয়। এটি জাপান সরকারের শীর্ষ গ্লোবাল ইউনিভার্সিটি প্রকল্প দ্বারা একটি “শীর্ষ টাইপ” বিশ্ববিদ্যালয় হিসাবেও নির্বাচিত হয়েছিল। Hokkaido University (হোক্কাইডো বিশ্ববিদ্যালয়), এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির মূল ক্যাম্পাসটি সাপ্পোরো স্টেশনের ঠিক উত্তরে সাপ্পোরো শহরের কেন্দ্রস্থলে অবস্থিত । এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্যাম্পাসের মোট আয়তন ৩ (তিন) বর্গ কিলোমিটার প্রায়।

বিখ্যাত এই বিশ্ববিদ্যালয় ১৮৭৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। হোক্কাইডো বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা হলো ১৮৩০১ জন। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় ১১৯৩৫ জন এবং স্নাতকোত্তর পর্যায়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা রয়েছে ৬৩৩৬ জন। এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির মোট প্রশাসনিক কর্মকর্তা রয়েছে ৬২৫০। এছাড়া অন্যান্য শিক্ষার্থী রয়েছে প্রায় ৮৯ জন গবেষণা শিক্ষার্থী [২০১৭] হোক্কাইডো বিশ্ববিদ্যালয় জাপানের অন্যতম শীর্ষ গবেষণা প্রতিষ্ঠান।

৭. Kyushu University (কিউশু বিশ্ববিদ্যালয়)

জাপান ইউনিভার্সিটির রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ৭ তম । ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী জাপানের Kyushu University (কিউশু বিশ্ববিদ্যালয়) বিশ্বে ৫০১ তম থেকে ৬০০ তম অবস্থানে রয়েছে। এছাড়া ইম্প্যাক্ট ইউনিভার্সিটির রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ২০১ তম থেকে ৩০০ তম।

কিউশু বিশ্ববিদ্যালয় কিউশু দ্বীপের ফুকুওকাতে অবস্থিত একটি জাপানি সরকারি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় । এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯০৩ সালে। এই বিশ্ববিদ্যালয়টির অনেকগুলো ক্যাম্পাস রয়েছে।

Kyushu University

কিউশু বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা হলো ১৮৫৬০ জন। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় ১১৬৮৩ জন এবং স্নাতকোত্তর পর্যায়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা রয়েছে ৬৮৭৭ জন। এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির মোট কর্মচারী রয়েছে ২১১০ ( শিক্ষক কর্মী) আর মোট প্রশাসনিক কর্মকর্তা রয়েছে ২৩৫১ (মোট স্টাফ)।

৮. নাগোয়া বিশ্ববিদ্যালয় (Nagoya University)

জাপান ইউনিভার্সিটির রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ৮ তম । ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী জাপানের নাগোয়া বিশ্ববিদ্যালয় (Nagoya University) বিশ্বে ৩৫১ তম থেকে ৪০০ তম অবস্থানে রয়েছে। এছাড়া ইম্প্যাক্ট ইউনিভার্সিটির রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ২০১ তম থেকে ৩০০ তম।

নাগোয়া ইউনিভার্সিটি চিকুসা-কু, নাগোয়াতে অবস্থিত একটি জাপানি সরকারি গবেষণা বিশ্ববিদ্যালয় । এটি ছিল জাপানের সপ্তম ইম্পেরিয়াল ইউনিভার্সিটি। প্রথম পাঁচটি মনোনীত পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে অন্যতম একটি এবং জাপান সরকার কর্তৃক শীর্ষ গ্লোবাল ইউনিভার্সিটি প্রকল্পের শীর্ষ ধরনের বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিল।

Nagoya University

‌বিখ্যাত এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি ১৮৮১ সালে সর্বপ্রথম প্রতিষ্ঠিত হয়। এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির ক্যাম্পাসের আয়তন ৩.২ বর্গ কিলোমিটার। নাগোয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা হলো ১৫৭৭২ জন। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় ৯৫৮৫ জন এবং স্নাতকোত্তর পর্যায়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা রয়েছে ৬১৮৭ জন। এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির মোট কর্মচারী রয়েছে ৩৮৪৭জন। যেটা আমরা উইকিপিডিয়া [২০২০] থেকে জানতে পেরেছি। 

৯. সুকুবা বিশ্ববিদ্যালয় (University of Tsukuba)

জাপান ইউনিভার্সিটির রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ৯ তম । ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি র্যাংকিং ২০২২ অনুযায়ী জাপানের সুকুবা বিশ্ববিদ্যালয় (University of Tsukuba) বিশ্বে ৫০১ তম থেকে ৬০০ তম অবস্থানে রয়েছে। এছাড়া ইম্প্যাক্ট ইউনিভার্সিটির রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয় অবস্থান ১০১ তম থেকে ২০০ তম।

University of Tsukuba

সুকুবা বিশ্ববিদ্যালয় ​​জাপানের সুকুবা , ইবারাকিতে অবস্থিত একটি পাবলিক গবেষণা বিশ্ববিদ্যালয় । এই বিশ্ববিদ্যালয়টি ১৮৭২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এই বিশ্ববিদ্যালয়টির ক্যাম্পাস শহরে রয়েছে।

সুকুবা বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা হলো ১৬,৪৫৯ জন। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় ৯,৭৯৮ জন এবং স্নাতকোত্তর পর্যায়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা রয়েছে ৬,৬৬১ জন। উইকিপিডিয়া ২০২১ অনুযায়ী, এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির মোট কর্মচারী রয়েছে ২৬১৬ জন। 

আরোও পড়ুনঃ কানাডার সেরা ১০টি বিশ্ববিদ্যালয়

১০. হিরোশিমা বিশ্ববিদ্যালয় (Hiroshima University)

জাপানের সেরা ১০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে তালিকায় সবার শেষের বিশ্ববিদ্যালয় হলো হিরোশিমা বিশ্ববিদ্যালয় (Hiroshima University)। জাপান ইউনিভার্সিটির রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ১০ তম । ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী জাপানের হিরোশিমা বিশ্ববিদ্যালয় (Hiroshima University) বিশ্বে ৮০১ তম থেকে ১০০০ তম অবস্থানে রয়েছে। এছাড়া ইম্প্যাক্ট ইউনিভার্সিটির রেংকিং ২০২২ অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয় অবস্থান ১০১ তম থেকে ২০০ তম।

Hiroshima University

হিরোশিমা বিশ্ববিদ্যালয় ​​জাপানের হিগাশিহিরোশিমা এবং হিরোশিমা , জাপানে অবস্থিত একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়। এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯২৯ সালে।বিশ্ববিদ্যালয়টির ক্যাম্পাসের আয়তন ৩.২ বর্গ কিলোমিটার।

হিরোশিমা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় ১১৩২২ জন এবং স্নাতকোত্তর পর্যায়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা রয়েছে ৩,৩৫৮ জন।

যারা জাপানে উচ্চশিক্ষা নিতে আগ্রহী কিংবা জাপানের বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কে জানতে চান তাদের জন্য এই লেখাটি খুবই উপকারী হবে বলে আমি মনে করি। আপনার উচ্চশিক্ষায় জাপানের এই বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে আপনার পছন্দের তালিকায় রাখতে পারেন। যদি এই পোস্টটি আপনার কাছে তথ্যবহুম মনে হয় তবে এটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে পারেন।

Subscribe For Latest Updates!

Get higher-study abroad, visa & migration-related latest updates from eGal!

Invalid email address
We promise not to spam you. You can unsubscribe at any time.

Nazmul Hasan

Assalamu Alaikum. This is Nazmul Hasan. I am from Bangladesh. I am Civil Engineering Student. I love to share information about higher studies and immigrants. Because many students fail to fulfill their dream of higher education only due to a lack of information

One thought on “জাপানের সেরা ১০ বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকা

Leave a Reply

Your email address will not be published.