চায়নাতে ইন্টারন্যাশনাল স্টুডেন্ট হিসেবে পড়াশোনা (শেষ পর্ব)

•IELTS কি লাগবে?
চায়নাতে ব্যাচেলর পড়ার জন্য সাধারনত IELTS লাগে না।তবে বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং-এ শীর্ষে থাকা কিছু ইউনিভার্সিটিতে IELTS লাগে,তবে সেগুলো হাতে গণা।মাস্টার্স ও পিএচডি করার জন্য IELTS দরকার পরে।যদি IELTS কারো থাকে সেটা প্লাস পয়েন্ট হয় ছাত্রছাত্রীদের জন্য অ্যাপলাই করার পর রিযেক্ট বা বাদ পড়ার সম্ভাবনা খুবই কম বা রিযেক্ট হবে না ৯০%।নিজ দক্ষতা যাচাই এর জন্য IELTS দিন।

•ইউনিভার্সিটি কিভাবে পছন্দ করবো?
চায়নাতে বেশির ভাগ ইউনিভার্সিটি বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রছাত্রীদের জন্য ফ্রেন্ডলি হয়ে থাকে কারন ইন্জিনিয়ারিং ও বিজ্ঞান বিষয়ক সাবজেক্ট ই বেশী কারন আগেই বলেছি চায়না ইন্জিনিয়ারিং ও বিজ্ঞানে সুদক্ষ দেশ,পাশাপাশি ব্যবসা শিক্ষা শিক্ষার্থীদের জন্য কিছু সাবজেক্ট থাকে ইউনিভার্সিটি গুলোতে।মেডিকেল ইউনিভার্সিটিও প্রায় দু শ খানেক রয়েছে।তাছাড়া মেডিসিন ও মেডিকেল ইন্জিনিয়ারিং সাবজেক্ট আছে।কিভাবে পছন্দ করবেন-আপনার পছন্দ সাবজেক্ট রিলেটেড ইউনিভার্সিটি চায়নাতে আছে কিনা গুগলে সার্চ দিন (ইটস কমন ম্যান),কিন্তু গুগলের রেজাল্ট আপনারে আশাহত করতে পারে কারন চায়নার সকল ইউনিভার্সিটির ডাটা গুগলে থাকে না,দ্য রিজন ইজ চায়নাতে গুগল ব্যান(নিষিদ্ধ)।বাংলাদেশী চায়নাতে অধ্যয়নরত ছাত্রছাত্রীদের খোলা ফেসবুক গ্রুপ গুলোতে এড হয়ে পোস্ট করে আপনার পছন্দের সাবজেক্ট ও ইউনিভার্সিটি সম্পর্কে জানতে পারেন। সাবধান গ্রুপে জানতে গিয়ে অনেকেই আপনাকে চায়না নেয়ার ব্যাপারে লোভ দেখাবে,মেসেজ দিবে এগুলো এড়িয়ে যাবেন।আপনি এই লেখার লেখক কে মেসেজ দিতে পারেন বিনামূল্যে যে কোন সময় সাহায্য করবো প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে।

চায়নাতে ইন্টারন্যাশনাল স্টুডেন্ট হিসেবে পড়াশোনা- পর্ব-২ ও শেষ•কিভাবে আবেদন করবো?
প্রথমত,সরাসরি কিছু ইউনিভার্সিটিতে আবেদন করা যায় তবে সেগুলো একটু কঠিন হয়ে যায় চান্স পাবার ক্ষেত্রে।গুগল থেকে ইউনিভার্সিটি ওয়েব সাইটে গিয়ে এডমিশন অপশনে যেয়ে রিকোয়ার্মেন্ট ফিলাপ করে অ্যাপলাই(আবেদন) করতে পারেন।তবে সামান্য কিছু ইউনিভার্সিটিতে অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন সেক্ষেত্রে অনলাইনে ভাইবাও দেয়া লাগে।
দিত্বীয়ত,এজেন্সি বা কনসালটেন্সি মাধ্যমে অবেদন করতে পারেন।সাবধান,এজেন্সি/কনসালটেন্সি এড়িয়ে যান গুটি কয়েক কনসালটেন্সি আপনাকে পারফেক্টলি সার্ভিস দিবে,৭০% ই ধোকাবাজ হয়ে থাকে।তৃতীয়ত চায়নাতে যদি কেউ থাকে পরিচিত তাদের মাধ্যমে আবেদন করাই শ্রেয় যেমন বন্ধু বা বড় ভাই তারা হয়তো সময় নিবে বা দুটো কথা বাড়িয়ে বলবে কিন্তু এজেন্সিদের মত বড় এমাউন্ট সার্ভিস চার্জ নিবে না।নিতান্তই যদি কেউ না থাকে তাহলে বুঝে শুনে খোজঁ খবর নিয়ে কনসালটেন্সির পরামর্শ নিন ও তাদের সেবা নিন।

•আবেদন করবো কখন?
১ম পর্বে বলেছি আবদেন করা যায় ২ টা সেশনের জন্য মার্চ এ সেপ্টেম্বর।মার্চ সেশনে পড়ার জন্যা জানুয়ারী থেকে আবেদন করতে হবে যা ফেব্রুয়ারী ১০-১৫ তারিখ পর্যন্ত সময় থাকে।মার্চ সেশন গেলে মূলত চায়নিজ ভাষার কোর্স করতে হয় নিজ পকেটের টাকা দিয়ে😬।তারপর সেপ্টেম্বরে মেজর শুরু হয় বা অন্য ইউনিভার্সিটিতে যেতে হয়।
সেপ্টেম্বর সেশনে পড়ার জন্য আবেদন জুন থেকে শুরু হয়ে আগস্টের ১ম সপ্তাহ পর্যন্ত চলে। সেপ্টেম্বর সেশনে সাধারনত সরাসরি মেজর শুরু হয়।সেপ্টেম্বরের সেশনে আবেদন করাই ভাল।

•আবেদন করতে কি কি লাগে?
১.পাসপোর্ট
২.ছবি
৩.একাডেমিক সার্টিফিকেট ও ট্রান্সক্রিপ্ট
৪.স্বাস্থ পরীক্ষার রিপোর্ট
৫.পুলিশ ক্লিয়ারেন্স
৬.ব্যাংক স্ট্যাটমেন্ট
৭.রিকোমেন্ডশন পেপার
৮.এক্সট্রা কারিকুলার সার্টিফিকেট (যদি থাকে)

#সোর্স:নিজ চায়না অভিজ্ঞতা ও গুগলে থেকে সামান্য কিছু তথ্য নেয়া হয়েছে।
আমার ফেসবুক আইডি:
https://m.facebook.com/naimur.rahman.5099940
১ম পর্বের লিংক:

চায়নাতে ইন্টারন্যাশনাল স্টুডেন্ট হিসেবে পড়াশোনা

Subscribe For Latest Updates!

Get higher-study abroad, visa & migration-related latest updates from eGal!

Invalid email address
We promise not to spam you. You can unsubscribe at any time.

Naimur Rahman

Hello,I’m Naimur from Dhaka Bangladesh.I’m a university going student want to be a self employed and skilled person.

Leave a Reply

Your email address will not be published.