শিল্প-সাহিত্য ও ঐতিহ্যের নগরী ফ্রান্সে উচ্চশিক্ষা

পশ্চিম ইউরোপের উন্নত দেশগুলোর মধ্যে একটি দেশ হচ্ছে ফ্রান্স। প্যারিস হচ্ছে বৃহত্তম শহর এবং রাজধানী। প্যারিসকে “দ্যা সিটি অব লাভ” বলে আখ্যায়িত করা হয়। শিক্ষা, সংস্কৃতি, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে দেশটির খ্যাতি বিশ্ব জুড়েই আছে। উল্লেখ্য যে- যুক্তরাজ্য, জার্মানি, কানাডা, অস্ট্রেলিয়ার পরই আন্তর্জাতিক ছাত্রছাত্রীদের শীর্ষ পছন্দের দেশ হচ্ছে ফ্রান্স।

আজকাল, ফ্রান্সের বিশ্ববিদ্যালয় এবং কলেজগুলি সারা বিশ্বে মাস্টার্স এবং ব্যাচেলর শিক্ষার্থীদের জন্য ইংরেজিতে বিভিন্ন পর্যায়ের কোর্স পদ্ধতি চালু রয়েছে। ফ্রান্সের শিক্ষার মান বেশ উন্নত এবং শিক্ষার ডিগ্রি আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত।

উচ্চশিক্ষার জন্য ফ্রান্সকে কেনো বেছে নিবেন?

  • ইংরেজিতে শেখানো ডিগ্রির সংখ্যা বৃদ্ধি-

আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীদের আকর্ষণ করার জন্য, ফ্রান্সের সরকারী এবং বেসরকারী উভয় বিশ্ববিদ্যালয়ই তাদের একাডেমিক কোর্স ইংরেজিতে শেখানোর সংখ্যা বাড়িয়ে চলেছে। ফ্রান্সে এখন ১৫০০ টিরও বেশি কোর্স ইংরেজিতে শেখানো হয় এবং প্রতি বছর এই সংখ্যাটি বেড়েই যাচ্ছে।

  • ফ্রেঞ্চ ভাষা শেখা এবং উন্নত করার জন্য দুর্দান্ত সুযোগ-

যদিও ইংরেজি ভাষা বিভিন্ন সেক্টরে প্রাথমিক আন্তর্জাতিক ভাষা হয়ে দাঁড়িয়েছে। তারপরও আমি বলব যে, ফরাসিকে উপেক্ষা করা উচিত নয়। ফ্রেঞ্চ বিশ্বব্যাপী ৩০ টিরও বেশি দেশে তৃতীয় সর্বাধিক সাধারণ এবং ব্যবসায়িক ভাষা এবং অফিসিয়াল ভাষা হিসেবে স্বীকৃত।

যেই সব ব্যক্তিরা কমপক্ষে দুটি বিদেশী ভাষায় কথা বলেন তাদের অধিক বেতন পাওয়ার সম্ভাবনা এবং বড় মাল্টিন্যাশনাল কর্পোরেশন এবং প্রতিষ্ঠানে উচ্চপদে আবেদনেরও বেশ ভাল সম্ভাবনা থাকে। ফরাসী ভাষা কিন্তু “প্রেমের ভাষা” নামেও পরিচিত।

  • ফ্রান্স গবেষণা এবং নতুনত্বের কেন্দ্রস্থল-

বিভিন্ন ফরাসী প্রতিষ্ঠান তাদের গবেষণা সুবিধা এবং কর্মীদের জন্য প্রচুর কর্মসংস্থান করে এবং বিনিয়োগ করে। আপনি যদি পরীক্ষাগারগুলিতে দীর্ঘ সময় ব্যয় করতে চান, পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়ে এবং মানবতার পরবর্তী যুগান্তকারী হিসাবে কাজ করতে চান দেখেন তবে আপনার জন্য উপযুক্ত দেশটি হল ফ্রান্স।

  • ফ্রান্স পর্যটকদের জন্য আকর্ষণীয়-

আপনি ফরাসী রিভেরা উপভোগ করতে পারবেন, লাসাক্সের প্রাগৈতিহাসিক গুহচিত্রগুলি অন্বেষণ করতে পারবেন, আইফেল টাওয়ারের শীর্ষ থেকে ছবি তুলে এবং লুভের যাদুঘরের ইতিহাসের মধ্যে তৃষ্ণা নিবারণ করতে পারবেন। শুধু তাই নয়, আরও অনেক আকর্ষণ ফ্রান্সকে এক অন্যতম রুপে রূপান্তরিত করে বিশ্বের জনপ্রিয় পর্যটন স্থান হিসেবে পরিচয় দেয়।

ফ্রান্সের শীর্ষ বিশ্ববিদ্যালয় গুলো-

  • Université PSL (Paris Sciences & Lettres)
  • Ecole Polytechnique
  • Sorbonne University
  • CentraleSupélec
  • Ecole Normale Supérieure de Lyon
  • Ecole des Ponts ParisTech
  • Sciences Po Paris
  • Université de Paris
  • Université Paris 1 Panthéon-Sorbonne
  • HEC Paris
  • Paris School of Business

ফ্রান্সে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সেশন-

ফ্রান্সে পড়াশোনার জন্য বছরে ৩টা সেমিস্টার রয়েছে।

  • প্রথম সেমিস্টার- জানুয়ারী/ ফেব্রুয়ারী
  • দ্বিতীয় সেমিস্টার- মে/ জুন
  • তৃতীয় সেমিস্টার- সেপ্টেম্বর/ অক্টোবর

ফ্রান্স বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদনের প্রক্রিয়া-

ফ্রান্সের প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে তাদের নিজস্ব ওয়েবসাইটে শিক্ষার্থীদের স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রি প্রোগ্রামের জন্য আবেদন সম্পর্কিত সব তথ্য রয়েছে যা ভবিষ্যতে ভর্তির জন্য উপযোগী।

আপনি যখন আপনার পছন্দের বিশ্ববিদ্যালয়টি নির্বাচন করবেন, তখন আপনি তাদের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন। সেখানে আপনার সমস্ত কাগজাদি আপলোড করতে পারবেন। বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদন করতে আপনার যা প্রয়োজন সেগুলো হচ্ছে-

  • অ্যাপ্লিকেশান ফর্ম।
  • ব্যক্তিগত তথ্য।
  • এসএসসি ট্রান্সক্রিপ্ট ও সার্টিফিকেট।
  • এইচএসসি ট্রান্সক্রিপ্ট ও সার্টিফিকেট।
  • ব্যাচেলর ট্রান্সক্রিপ্ট ও সার্টিফিকেট (মাস্টার্স এ আবেদন করতে)।
  • মাস্টার্স ট্রান্সক্রিপ্ট ও সার্টিফিকেট (পিএইচডি আবেদন করতে)।
  • আপনার সিভি।
  • ইংরেজি ভাষা দক্ষতার সার্টিফিকেট IELTS/ TOEFL (ইংরেজি মাধ্যমের জন্য)।
  • পাসপোর্ট।
  • পাসপোর্ট সাইজ ছবি।
  • জন্ম নিবন্ধন সার্টিফিকেট।
  • রিকমেন্ডেশন লেটার ২-৩টা।

ফ্রান্সে স্টুডেন্ট ভিসার জন্য কীভাবে আবেদন করবেন?

ফ্রান্স এমব্যাসির Cultural attachée তে ভিসা এপোয়েন্টমেন্ট এর জন্যে ইমেইল করতে হবে। ভিসার জন্য আবেদনকারীকে যাবতীয় কাগজপত্র সহ ফ্রান্স দুতাবাসে যোগাযোগ করতে হবে। ভিসা ফি ৯৯ ইউরো। ইন্টার্ভিউতে যে সকল পেপারস নিয়ে উপস্থিত থাকতে হবে, সেগুলো হচ্ছে-

  • বিশ্ববিদ্যালয়ের অফার লেটার।
  • ব্যাংক স্টেটমেন্ট প্রতি মাসিক ৬১৫ ইউরো করে।
  • একটি বৈধ পাসপোর্ট।
  • হেলথ ইস্যুরেন্স।
  • ভিসা অ্যাপ্লিকেশান ফি।
  • সকল একাডেমিক ডকুমেন্টস।
  • ফরাসী ভাষায় দক্ষতার প্রমাণ, যদি আপনি কোনও ফরাসী ভাষার কোর্স নিয়ে পড়াশোনা করতে চান।
  • আপনার আবাসন নিশ্চিতকরণ কাগজ বা প্রত্যয়করণ (যদি আপনি বন্ধু বা আত্মীয়দের সাথে থাকেন তবে) সেগুলো প্রদর্শিত করতে হবে।

ফ্রান্স বিশ্ববিদ্যালয়ে টিউশন ফি-

ফ্রান্সে ইউনিভার্সিটি এবং কোর্স ভেদে প্রতি বছরে ব্যাচেলর্স প্রোগ্রামের জন্য টিউশন ফি ২৭৭০ ইউরো, মাস্টার্স প্রোগ্রামের জন্য ৩৭৭০ ইউরো হয়ে থাকে। তবে কিছু কিছু প্রোগ্রাম, কোর্স, ইউনিভার্সিটিতে টিউশন ফি আরও বেশি হয়ে থাকে আবার কমও হয়ে থাকে।

লেখাটি ভাল লাগলে অবশ্যই শেয়ার করবেন এবং আপনার মূল্যবান মতামত জানাবেন।
কোনো প্রশ্ন থাকলে আমাদের ফেসবুক গ্রুপে পোস্ট করবেন।
সবসময় আপনার সহযোগিতায় আমরা পাশে আছি।
জি ধন্যবাদ।

লিখেছেন- রেদোয়ান আহমেদ

আমার আরও লেখা-সমূহ পড়তে চাইলে এই লিঙ্কে আপনার আমন্ত্রন রইলো- পড়ে দেখুন

Subscribe For Latest Updates!

Get higher-study abroad, visa & migration-related latest updates from eGal!

Invalid email address
We promise not to spam you. You can unsubscribe at any time.

5 thoughts on “শিল্প-সাহিত্য ও ঐতিহ্যের নগরী ফ্রান্সে উচ্চশিক্ষা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *